ওয়ার্নের এই ব্যাগী গ্রীনের দামটা সবার আগে হেঁকেছেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভন। পঁচিশ হাজার ডলার বিড করেছিলেন তিনি। ক্রমেই বাড়ছে দাম, তিন লক্ষ ডলারের ওপরে চলে গেছে ইতিমধ্যেই।

অস্ট্রেলিয়া পুড়ছে, দাবানলে জ্বলে নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছে গোটা দেশ, পুড়ে মারা গেছে পঞ্চাশ কোটি প্রাণী। সেই সংখ্যাটা বাড়ছে ক্রমশ, দল-মত নির্বিশেষে লাখো অস্ট্রেলিয়ান এগিয়ে এসেছেন এই বোবা জীবগুলোকে সাহায্য করার জন্যে, ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উদ্ধার অভিযানে অংশ নিচ্ছেন অনেকেই।

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট টনি অ্যাবোট নিজে অংশ নিয়েছেন উদ্ধার অভিযানে, আরউইন ফ্যামেলি নামের একটি পরিবারের সদস্যরা নিজেরাই বাঁচিয়েছেন নব্বই হাজারেরও বেশি প্রাণীর জীবন। নিজের নগ্ন ছবি বিক্রি করে টাকা তুলে সেটা দাবানলে আক্রান্ত প্রাণীদের শুশ্রূষায় খরচের জন্যে পাঠিয়েছেন এক ইন্সটাগ্রাম মডেল। সবাই যার যার জায়গা থেকে চেষ্টা করছেন অবদান রাখার, ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা সবার মানবতাবোধকে জাগিয়ে তুলেছে খানিকটা হলেও।

ক্রিকেটারেরাই বা তার বাইরে থাকবেন কেন, দেশটা তো তাদেরও! আর তাই সাবেক অস্ট্রেলিয়ান লেগস্পিনার শেন ওয়ার্নও এগিয়ে এসেছেন, তিনি নিলামে তুলেছেন তার ব্যাগী গ্রীন টুপিটা। যে ক্যাপ পরে টেস্ট ক্যারিয়ারটা কাটিয়েছেন, অসহায় প্রাণীগুলোকে সাহায্য করার জন্যে সেই ক্যাপ বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ওয়ার্ন।

দাবানলে ক্ষতিগস্তদের সাহায্যের জন্যে নিজের ব্যাগী গ্রীন টুপি নিলামে তুলেছেন ওয়ার্ন

অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের সংস্কৃতি সম্পর্কে যারা খানিকটা হলেও খোঁজ-খবর রাখেন, তারা জানেন একটা ব্যাগী গ্রীন টুপির আবেদন সেদেশের ক্রিকেটারদের কাছে কতটুকু। ভীষণ যত্ন করেই এই টুপিটাকে আগলে রাখেন যে কোন ক্রিকেটার। এটা গৌরব আর সম্মানের প্রতীক হিসেবেই বিবেচনা করা হয় অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের মধ্যে।

যে ক্যাপটা মাথায় চাপিয়ে তাদের অভিষেক হয়, সেটা পরেই তারা ক্যারিয়ারের শেষ টেস্টটা খেলেন। অ্যালান বোর্ডার, স্টিভ ওয়াহ বা মার্ক টেলরের মতো তারকা ক্রিকেটারেরা এখনও আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ব্যাগী গ্রীন নিয়ে কথা বলতে গেলে, ওয়াহ তো নিজের টুপিটাই রেখে দিয়েছেন আলাদা একটা ভল্টে। সেই ব্যাগী গ্রীনটাকে আর্ত মানবতার সেবায় দান করার সিদ্ধান্ত নিতে শেন ওয়ার্নকেও নিশ্চয়ই বেগ পেতে হয়েছে, কিন্ত খেলোয়াড়ি জীবনে ‘ব্যাডবয়’ ইমেজের অধিকারী এই স্পিনার কিন্ত আবেগকে একপাশে সরিয়ে রেখেই কঠিন সিদ্ধান্তটা নিয়ে ফেলেছেন।

ব্যাগী গ্রীন মাথায় শেন ওয়ার্ন

ফক্স ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কাছে ওয়ার্ন বলেছেন, ‘ভয়াবহ এই দাবানল আমাদের জীবনে যেভাবে প্রভাব ফেলছে, সেটা চিন্তাই করা যায় না। প্রাণীরা মারা যাচ্ছে, মানুষের ঘরবাড়ি পুড়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্তদের কান্না আমাদের সবার হৃদয় ছুঁয়ে গেছে, আমাদের কাঁদিয়েছে। এই ক্যাপটা মাথা চাপিয়ে আমি আমার পুরোটা টেস্ট ক্যারিয়ার কাটিয়েছি, নিঃসন্দেহে এটা আমার কাছে ভীষণ আবেগের একটা বস্তু। কিন্ত আগুনে পুড়ে যাওয়া প্রাণী বা ক্ষতিগস্ত মানুষগুলো এরচেয়ে বেশি গুরিত্বপূর্ণ। আশা করব আমার এই ব্যাগী গ্রিন ক্যাপটা সে সব ক্ষতিগ্রস্তদের কাজে আসবে।’

ওয়ার্নের এই ব্যাগী গ্রীনের দামটা সবার আগে হেঁকেছেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভন। পঁচিশ হাজার ডলার বিড করেছিলেন তিনি। ক্রমেই বাড়ছে দাম, তিন লক্ষ ডলারের ওপরে চলে গেছে ইতিমধ্যেই। ব্যাগী গ্রীন টুপির নিলামে ওঠার ইতিহাস অবশ্য এটাই প্রথম নয়, এর আগে ২০০৩ সালে স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের ব্যাগী গ্রীন টুপিটা নিলামে বিক্রি হয়েছিল সোয়া চার লক্ষ ডলারে। শেন ওয়ার্নের ব্যাগী গ্রীন সেই রেকর্ড ভেঙ্গে দেবে, এমন আশা করাই যায়।


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা