তিনি নিজেও আছেন করোনা ঝুঁকিতে। এবার পর্তুগালের সকল করোনাভাইরাস আক্রান্ত মানুষদের জন্য হাসপাতাল বানিয়ে অনন্য নজির উপস্থাপন করতে যাচ্ছেন রোনালদো।

বর্তমানে পর্তুগালে নিজের বাড়িতে কোয়ারান্টিনে আছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত  জুভেন্টাস সতীর্থ দানিয়েল রুগানি সংস্পর্শে আসায় তাকে ১৪ দিনের জন্য গৃহবন্দী থাকতে হচ্ছে। এ অবস্থায় থাকাকালীন, ২ দিন আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন রোনালদো। এখন আবার শোনা যাচ্ছে, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে অবদান রাখতে পর্তুগালে অবস্থিত নিজের সব হোটেলকে হাসপাতালে রুপান্তিত করবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার। 


একের পর এক দেশে নতুন করে আঘাত হানছে করোনাভাইরাস।  করোনাভাইরাসের ছোবল থেকে রক্ষা পায় নি পর্তুগালও। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১৬৯। শুধু গতকাল ১ দিনেই আক্রান্ত হয়েছে ৫৬ জন। করোনাভাইরাসের প্রকোপ দিন দিন বেড়েই চলেছে ইউরোপের এই দেশটিতে। এমন অবস্থায়, পর্তুগালের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার রোনালদো উদ্বিগ্ন হয়ে নিজের বিলাসবহুল সব হোটেলকে হাসাপাতালে রুপান্তর করে দিচ্ছেন। 'পেস্তানা সিআর সেভেন' নামে পর্তুগালে কয়েকটি হোটেল রয়েছে তার। এই ব্র‍্যান্ডের হোটেলের দুটি শাখা রয়েছে লিসবন এবং ফুনচাল শহরে। এই হোটেলগুলোই এবার করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের সেবাদানে ব্যবহার করা হবে। 

রোনালদোর হোটেলগুলোকে হাসপাতালে রুপান্তরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কা। এক্ষেত্রে রোনালদো আরেকটি উদারতার নজির স্থাপন করতে যাচ্ছেন। তার হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা সেবা নিতে কোনো খরচ হবে না আক্রান্ত রোগীদের। সবার জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করবেন রোনালদো। আক্রান্ত ব্যক্তিদের  সেবা দেওয়া ডাক্তার এবং নার্সদের বেতন নিজ থেকেই বহন করবেন এই পর্তুগিজ সুপারস্টার।


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা