স্পেনজুড়ে দিন দিন বাড়তে থাকা করোনার প্রকোপ ছাড় দেয়নি ফুটবলারদেরও।

গত ১০ মার্চেও স্পেনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগির সংখ্যা ছিল মাত্র ১২০০। আজ সেটা প্রায় ১২০০০ ছাড়িয়েছে। এতো দ্রুত বাড়ছে এর প্রকোপ যে নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমশিম খেতে হচ্ছে স্পেন সরকারকে। করোনাভাইরাসের কারণে স্পেনের ঘরোয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর লা-লীগা স্থগিত রাখা হয়েছে। তারপরেও ফুটবল থেকে এই ভাইরাসের ঝুঁকি প্রতিরোধ করা যাচ্ছে না। ইতিমধ্যে লা-লীগার ক্লাব এস্পানিয়লের ছয় ফুটবলার এক সাথে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

বর্তমানে লা-লীগা পয়েন্ট টেবিলের ২০ নম্বরে অবস্থান করছে এস্পানিয়ল। রেলিগেশন জোনে থাকা ক্লাবটির উপর হানা দিয়েছে কোভিড-১৯ ভাইরাস। শুধু ছয় ফুটবলারই নয় বরং দলের টেকনিক্যাল স্টাফের কয়েকজনও করোনাতে আক্রান্ত বলে জানিয়েছে এস্পানিয়ল কর্তৃপক্ষ, "আমাদের প্রথম একাদশের ৬ জন ফুটবলার এবং টেকনিক্যাল স্টাফের কয়েকজনের করোনাভাইরাসের পরীক্ষায় পজিটিভ এসেছে। তারা সকলেই প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছেন। চিকিৎসা বিষয়ক পরামর্শগুলো তারা মেনে চলছেন।"

এছাড়া, আরেক স্প্যানিশ ক্লাব ভ্যালেন্সিয়াও জানিয়েছে তাদের দলের ৩৫ শতাংশ ফুটবলার কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত। লা-লীগার প্রথম ফুটবলার হিসেবে আক্রান্ত আর্জেন্টাইন এজেকুয়েল গ্যারে এই ক্লাবটিরই ডিফেন্ডার। 

এছাড়া স্প্যানিশ গণমাধ্যম মার্কা জানিয়েছে, রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক প্রেসিডেন্ট লরেঞ্জো সাঞ্জ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে রয়েছে। ৭৬ বছর বয়সী সাবেক এই ফুটবল কর্তার অবস্থার ধীরে ধীরে অবনতি হচ্ছে। 


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা