কেন্দ্রীয় ও প্রথম শ্রেণীর চুক্তির বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের এককালীন ৩০ হাজার টাকা করে দিবে বিসিবি।

মাত্র এক রাউন্ড শেষেই বন্ধ হয়ে গেছে ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ (ডিপিএল)। করোনার প্রকোপ শেষ না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে লীগটি। এমনকি এটি আবারো শুরু হবে কি না, তা নিয়েও রয়েছে শঙ্কা। এমন অবস্থায়, আর্থিকভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারেন যেসব ক্রিকেটাররা, তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাদেরকে আর্থিকভাবে সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান। 

কিছুদিন আগে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তির বেতন কাঠামো প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে রাখা হয়েছে ১৭ জন ক্রিকেটারকে। বিভিন্ন গ্রেডে ভাগ করে প্রতি মাসেই দেওয়া হবে তাদের বেতন। কেন্দ্রীয় চুক্তি ছাড়াও প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটারদের নিয়ে আরেকটি চুক্তি হয়। যেখানে রাখা হয় ৮০-৯০ জন ক্রিকেটারকে। যাদেরকে গ্রেড ভেদে ১৭২৫০ টাকা থেকে শুরু করে ২৮৭৫০ টাকা পর্যন্ত বেতন দেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকা প্রকাশ করলেও এখন পর্যন্ত প্রথম শ্রেণীর চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের তালিকা প্রকাশ করেনি বিসিবি। 

শীর্ষ কয়েকজন ক্রিকেটারের বাইরে প্রায় সব ক্রিকেটারই তাকিয়ে থাকেন এই ঢাকা প্রিমিয়ার লীগের দিকে। বছরজুড়ে তাদের আয়ের একটি বড় অংশ আসে এই লীগ থেকে। শেষ পর্যন্ত যদি লীগ আর মাঠে না গড়ায় তবে বড় বিপদেই পড়তে হবে ক্রিকেটারদের। তবে এক্ষেত্রে দারুণ দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করলো বিসিবি। কেন্দ্রীয় এবং প্রথম শ্রেণীর চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটার ব্যতিত যেসব ক্রিকেটাররা এবার প্রিমিয়ার লীগ খেলছেন, তাদেরকে এককালীন ৩০ হাজার টাকা দিবে দেশের ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থাটি। 

দুর্ভাবনায় থাকা ক্রিকেটারদের আর্থিক সহায়তার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, "টুর্নামেন্ট যেহেতু অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য বন্ধ আছে, বোর্ডের চুক্তির বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের আর্থিক সমস্যায় পড়তে হতে পারে। অনেকেই চলতি লিগের পারিশ্রমিকের কেবল কিছু অংশ পেয়েছে। এই সহায়তা ওই ক্রিকেটারদের জন্যই।"


ট্যাগঃ

শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা