বাংলাদেশি তরুণ একটা ছেলের কাছ থেকে এরকম ব্যতিক্রমী, অসাধারণ ঠাণ্ডা মাথা, লিডারশীপ আমাদের ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তির!

সত্যি কথা বলি, আকবর আলীর জায়গায় মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ হলে পর্যন্ত ওভারের প্রথম বলে রান নিয়ে তাইজুলকে বাকি ৫ বল স্ট্রাইক দিতো। শুধু মুশফিক-মাহমুদুল্লাহ কেন, সাব্বির, লিটনেরাও একই কাজ করতো। একই কাজ তাঁরা করেছে অনেকবার। ইংল্যান্ডের সাথে টেস্টে করেছিলো, আরও অনেকবার করেছিলো। 

আকবর আলী কেবল প্রথমে রাভি বিশ্নয়ের বল কেবল দেখে গেছে। ১০ ওভার শেষ করতে দিয়েছে। এরপর কার্তিক ত্যাগীর বল কেবল ছেড়ে দিয়ে গেসে। সে জানে যে একটা কম্প্যারিটভলি দুর্বল বোলারের ওভার পাবেই! এই যে স্ট্র্যাটেজি, ওইসময় মাথা ঠান্ডা রাখা, শেষ করার আগ পর্যন্ত ক্যালকুলেশন, কোন বোলারকে টার্গেট করব, কাকে টার্গেট করব না!- এইটা যেকোন বাংলাদেশিদের ক্ষেত্রে প্রথম! 

সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে দলকে চ্যাম্পিয়ন করেছেন আকবর আলী

সেসময় উলটা দিকে রাকিবুলকে বলে বলে বুঝায় আসছে, "তুই জাস্ট ঠেকায় যা!" কেবল ডিরেকশন দিয়ে গেসে। সিনিয়র দলের কেউ কিছুই বলে না। মাঠে আমরা দেখি না! আকবর আলীর ক্ষেত্রে দেখেছি। 

এরকম ম্যাচ শেষ হবার পরে সবাই যখন উল্লাস করছে, আকবর এক হাতে ষ্ট্যাম্প উঁচিয়ে হেঁটে আসছে! ট্রফিটা হাতে নিয়ে অন্যদের হাতে তুলে দিয়ে নিজে পিছনে চলে গেলো! সে আবার উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানও!! (সবগুলো ক্যারেকটারিস্টিক্স সাউন্ডস ভেরি ফ্যামিলিয়ার!

বাংলাদেশি তরুণ একটা ছেলের কাছ থেকে এরকম ব্যতিক্রমী, অসাধারণ ঠাণ্ডা মাথা, লিডারশীপ আমাদের ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তির! 

ইতিহাসের আকবর দ্যা গ্রেট! জয় বাংলা!


ট্যাগঃ

শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা